1. admin@dainikamaderphulpur.com : admin :
  2. chiran777@gmail.com : selim rana : selim rana
  3. info.popularhostbd@gmail.com : phulpur :
সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০৮:০৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
আশার প্রদীপ জ্বালিয়ে দিলেন নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান হাবিব! ধোবাউড়ায় ৯ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি ও মারধরের অভিযোগ ফুলপুরে দরজায় বিদ্যুতের তার লাগিয়ে হত্যার চেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত আলী এডুকেশন সেন্টারের শুভ উদ্বোধন ফুলপুর কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ ফুলপুরে আল হিকমা হিফজুল কোরআন মহিলার মাদ্রাসার শুভ উদ্বোধন ফুলপুরে গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত ফুলপুরে বিনামূল্যে হুইল চেয়ার ও সেলাই মেশিন বিতরণ তারাকান্দাএইচ, এ ডিজিটাল স্কুল এন্ড কলেজের এইচ এসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান ফুলপুরে আঞ্চলিক সড়কগুলোতে নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে বেশি ভাড়া আদায় চলছে, দেখা বা বলার কেউ নেই

ফাঁসিতে ঝুলে ফুলপুরে বওলায় মানসিক ভারসাম্যহীন অর্ধ বয়স্কের আত্মহত্যা

Reporter Name
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
  • ৩২৮ বার পড়া হয়েছে / ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

রবিউল হক বাবু,ফুলপুর প্রতিনিধি।। ফুলপুরে বওলা ইউনিয়ন লস্করপাড়া গ্রামের মোঃ মিরাশ উদ্দিনের ছেলে রহিম উদ্দিন বাড়ীর পাশেই মেহগনি বাগানে একটি গাছের ডালে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে এমনই খবর পাওয়া যায়।

খবর পেয়ে সরেজমিনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে দেখা ও জানতে পারি ঘটনা সত্য। তবে রহিম উদ্দিন একজন মানসিক ভারসাম্যহীন রুগী। তিন মাস আগে প্যারালাইসে বিছানায় একাতিত্ব জীবন যাপনে অভ্যস্ত হয়ে যায়।

পারিবারিক সূত্রে জানা, উল্লেখ্য মাঝে মধ্যে বউয়ের অভাব শূন্যতা ফুটে ওঠা তারমাঝে লখ্য করা যায়। আজ তার ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করা এমনই মত প্রকাশিত হয়েছে এলাকার বাসিন্দাদের মূখে।

এই ঘটনা স্থলে সরেজমিনে ফুলপুর উপজেলা প্রশাসন (পুলিশ) সহ এলাকার নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান মাহবুব আলম ডালিম তালুকদার ও ওয়ার্ড প্রতিনিধি দেলোয়ার হোসেন ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার শাহনাজ পারভীন সহ এলাকার গণ্য মান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত হয়ে আত্মহত্যা লাশ দেখতে আসেন। তবে রহিম উদ্দিনের স্ত্রী ঢাকা হতে আশা অপেক্ষায় এখনো মেম্বার, চেয়ারম্যান এবং পুলিশ বৃন্দ লাশের পাশেই রয়েছে।

আমাদের নিজেদের জীবন শেষ করার ক্ষমতা রয়েছে ৷ প্রতিবছর এক মিলিয়ন মানুষ এই পথ বেছে নেয়৷ এমনকি যে সব সমাজে আত্মহত্যা বেআইনী বা নিষিদ্ধ সেখানেও মানুষ আত্মহত্যা করে৷ যাদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা দেখা দেয় তাদের মনে হয় আর কোনো পথ নেই ৷ সেই মুহুর্তে মৃত্যুই তাদের জগতের বর্ণনা হয়ে ওঠে এবং এদের আত্মহননের এই সুতীব্র ইচ্ছাশক্তিকে কখনওই অগ্রাহ্য করা উচিত না এই অনুভূতি সত্যিকার, শক্তিশালী ও তাতক্ষনিক৷ যাদুবলে এটা সরিয়ে তোলা যায় না৷

তবে একথাও সত্যি যেঃ প্রায়ই সাময়িক সমস্যার স্থায়ী সমাধান আত্মহত্যা হয়। আমরা যখন বিষন্ন বোধ করি তখন বর্তমান মুহুর্তের খুব সর্ঙ্কীর্ন প্রেক্ষাপটে আমরা জীবনটাকে দেখি৷ এক সপ্তাহ বা এক মাস পর হয়ত সবকিছু সম্পূর্ণ অন্যরকম দেখাব। যারা একসময় আত্মহত্যার কথা ভেবেছিল তাদের মধ্যে বেশীর ভাগ আজ বেঁচে আছে বলে খুশী ৷ তারা বলে তারা জীবন শেষ করে দিতে চায়নি -শুধু যন্ত্রণাটা দূর করতে চেয়েছিল৷

সবচেয়ে জরুরী কাজ, কারুর সঙ্গে কথা বলা৷ যাদের আত্মহত্যা করতে ইচ্ছা হয় তাদের একা সব সামলানোর চেষ্টা করা উচিত না ৷ তাদের এখনই সাহায্য চাওয়া উচিত। বন্ধু বা পরিবারের সঙ্গে কথা বলুন ৷ শুধুমাত্র পরিবারের সদস্য বা বন্ধু কিংবা সহকর্মীর সঙ্গে কথা বলে অনেকটা আশ্বস্ত হওয়া যায় ৷ পরিবার বা বন্ধুর সঙ্গে কথা বলতে পারে না। অচেনা লোকের সঙ্গ কথা বলা সহজ মনে হয়৷ সারা পৃথিবীতে কেন্দ্র আছে।

কিন্তু ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারি, যদি কেউ দীর্ঘসময় যাবত বিষণ্নবোধ করে বা আত্মহত্যার ইচ্ছা থাকে সে হয়ত নিদানিক বিষণ্নতাবোধে ভুগছে ৷ তাই এমনই দেখতে হয়েছে আমাদের। এটা এক মানসিক ভারসাম্য হারানোর ফলে এমন হয়। পরিনার জীবনের পথে ‘অগ্রসর হওয়ায়’, সময়ের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে তবে ঐ সময়ে কি ঘটছে তাও গুরুত্বপূর্ণ৷ কারুর আত্মহননের ইচ্ছা হলে তক্ষুনি ঐ অনুভূতির ব্যাপারে কথা বলা যেতে পারে।

সংবাদ টি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved
Design BY Raytahost