1. admin@dainikamaderphulpur.com : admin :
  2. chiran777@gmail.com : selim rana : selim rana
  3. info.popularhostbd@gmail.com : phulpur :
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৯:৫০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ফুলপুরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের নবগঠিত ইউনিয়ন কমিটি শেরপুরের নকলায় পোস্টার টানানো নিয়ে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী সমর্থকদের সাথে ঘুষাঘুষি ১০ জুনের মধ্যে বেতন বোনাস পরিশোধের দাবিতে ওএসকে শ্রমিক ফেডারেশনের মিছিল সমাবেশ অনুষ্ঠিত তারাকান্দায় রাস্তা পাকা করণ কাজ উদ্বোধন কালবেলায় প্রকাশিত সংবাদের বিরুদ্ধে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর নিন্দা ও প্রতিবাদ ঈশ্বরগঞ্জে বিরোধপূর্ণ জমি জোর দখলের চেষ্টা, দোকানপাট ভাংচুর ফুলপুরে শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে গ্রেপ্তার ৩ ফুলপুরে ভাইটকান্দি স্কুল অ্যান্ড কলেজের কারিগরি শাখায় শতভাগ পাস ফুলপুরে বিনামূল্য চক্ষু চিকিৎসা সেবা প্রদান

ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ স্লো হওয়ার কারণ ও ফাস্ট করার উপায়।

Reporter Name

মোঃ জাহিদ হাসান, স্টাফ রিপোর্টার। বর্তমান সময়ে প্রায় সবার হাতেই ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ রয়েছে। আপনি কি কাজের জন্য ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ কিনেছেন সেটা বড় বিষয় না। আপনি যখন কাজ করবেন তখন যাতে ভালো ভাবে কাজ করে সেটাই বড় কথা। কিন্ত দেখা গেল আপনার জরুরি কাজটি করার সময় আপনার কম্পিউটারটি খুব ধীর গতিতে কাজ করতে থাকে এর থেকে বিরক্তিকর আর কিছুই হতে পারে না।

যত রকমের ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ আছে এদের কার্যক্রম চারটি ধাপে হয়ে থাকে। ইনপুট, মেমরি, প্রসেসিং ও আউটপুট।

কম্পিউটারে কোন একটি কাজ করার জন্য সর্বপ্রথম যেটা করতে হয় তা হলে ইনপুট প্রদান। আর এই ইনপুট সাময়িকভাবে জমা থাকে মেমরি বা র‌্যামে (RAM=Random access memory) । এই মেমরি থেকে ইনপুট প্রসেস হতে থাকে যার মাধ্যমে তাকে বলা হয় প্রসেসর। সর্বশেষে কাজের ফলাফল বিভিন্ন মাধ্যমে দিয়ে প্রকাশ হতে থাকে তাকে বলা হয় আউটপুট। তার মানে বুঝা গেল র‌্যাম এবং প্রসেসরের উপর যদি একসাথে অনেক পরিমাণ চাপ পরে অর্থাৎ কম্পিউটারে যদি একসাথে অনেকগুলো প্রোগ্রাম চালু করা হয় তাহলে কম্পিউটার স্লো হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কম্পিউটার স্লো হয়ে যাওয়ার পিছনে শুধু র‌্যাম বা প্রসেসরই নয় এছাড়া রয়েছে বিভিন্ন কারণ। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে গতি বৃদ্ধি করা যায়।

১। স্টার্টআপ প্রোগ্রাম (Startup program) সমূহ ডিজেবল করুনঃ
কম্পিউটার যখন চালু করা হয় তখন অটোমেটিক কিছু প্রোগ্রাম চালু হয়ে যায়। যা প্রসেসরকে স্লো করে দেয়। তাহলে বুঝতেই পারছেন কম্পিউটারের গতি বাড়ানোর জন্য Startup program disable করতে হবে। কিবোর্ড থেকে একসাথে Ctrl+Shift+Esc চাপলে আপনার সামনে একটি উইন্ডো চালু হবে সেখান থেকে Sartup ট্যাবে ক্লিক করুন এবং আপনার দরকার নেই এমন সব প্রোগ্রাম Disable করুন।
২। ডিস্ক ক্লিনআপ (Disk Cleanup)ঃ
উইন্ডোজে একটি অপশান রয়েছে ডিস্ক ক্লিনআপ যেখানে সিস্টেম ফাইল এবং অপ্রয়োজনীয় কিছু ডেটা সংরক্ষিত থাকে। অপ্রয়োজনীয় ডেটা গুলো ডিলিট করা জন্য This Pc->Local Disk (c:) এর উপর মাউস রেখে মাউসের রাইট বাটনে ক্লিক করে নিচের দিকে Properties এ ক্লিক করুন। একটি ডায়ালক বক্স আসবে সেখান থেকে Disk Cleanup->Clean up system files.
৩। অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস Uninstall করুনঃ
কম্পিউটারে যখন নতুন উইন্ডোজ দেওয়া হয় তখন অনেক অ্যাপস থাকে যেগুলো আমাদের কাজে লাগে না। এই সমস্ত অ্যাপস Uninstall করুন। Setting->Apps->Apps & features.
৪। ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপস ডিজেবল (Background apps disable) করুনঃ
কম্পিউটার চালু করার সময় অনেক অ্যাপস চালু হয়ে যায় যেগেুলো হয়তো কাজের সময় আমরা ব্যবহার করি না। ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপস গুলো চালু থাকার কারণে কম্পিউটার স্লো কাজ করে। তাই এগুলো অপ করুন। Setting->Privacy->Background Apps.
৫। উইন্ডোজ আপডেট (Window update) রাখুনঃ
অপারেটিং সিস্টেম বা উইন্ডোজ সব সময় আপডেট করে রাখুন। যখন নতুন কোন ফিচার আসবে আপডেট দেওয়ার মাধ্যমে আপনি তা ব্যবহার করতে পারবেন। অনেক সময় কম্পিউটার আপডেট না দেওয়ার কারণে স্লো কাজ করে। Setting->Update & Security->Check for updates.
৬। র‌্যাম (RAM) সংযুক্ত করুনঃ
Ram হলো Random access memory এটি একধরনের মেমরি যা আপনার কম্পিউটারকে একই সময়ে একাধিক প্রোগ্রাম চালাতে সাহায্য করব। আপনার কম্পিউটার যদি খুব বেশি স্লো করে তাহলে আরও র‌্যাম যোগ করুন এতে কাজের গতি বাড়বে।
৭। এসএসডির (SSD) ব্যবহারঃ
SSD হলো Solid State Drive এটি কম্পিউটারে ব্যবহৃত হার্ডডিস্কের মতো ডেটা সংরক্ষণ করে তবে এটি হার্ডডিস্কের তুলনায় খুব দ্রুত কাজ করে। তাই কম্পিউটারের গতি বৃদ্ধির জন্য ‍এসএসডি (SSD) ব্যবহার করতে পারেন।
৮। ব্রাউজার এক্সটেনশন ডিজেবল (Browser extensions disable) করুনঃ
অনেকের অভিযোগ থাকে ইন্টারনেট ব্যবহারের সময় কম্পিউটার আরও বেশি স্লো করে। তাই যে এক্সটেনশনটি প্রয়োজন নেই তা ডিজেবল করে রাখুন। এটি করা জন্য আপনার ব্রাউজারের উপরের ডান পাশে উপরের দিকে তিনটি ডট আছে তাতে ক্লিক করতে হবে তারপর “More tools” সিলেক্ট করুন সর্বশেষ extensions এ ক্লিক করুন তাহলেই আপনার এক্সটেনশন লিস্ট দেখতে পারবেন। সেখান থেকে ডিজেবল করুন। পাশাপাশি ব্রাউজার History গুলো ডিলেট করুন। Ctrl+H-> Clear browsing history.

সংবাদ টি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved
Design BY Raytahost